সপ্তম/৭ম শ্রেণীর বিজ্ঞান বই PDF | Class 7 Science Book PDF

5/5 - (1 vote)

Class 7 Science Book pdf download from Tunetuni.com

আসসালামু আলাইকুম প্রিয় ভিউয়ার, আপনারা যারা সপ্তম/৭ম শ্রেণীর বিজ্ঞান বই PDF আকারে খুজছেন তাদের জন্য নিয়ে আসলাম নতুন বছরের সপ্তম শ্রেণীর বিজ্ঞান বই পিডিএফ ৷ সপ্তম/৭ম শ্রেণীর শিক্ষার্থীদের বিজ্ঞানবইটির পিডিএফ মাঝে মাঝে প্রয়োজন হতে পারে ৷ শিক্ষার্থী ছাড়াও অনেকে আছেন যারা অনলাইনে Class 7 Science Book PDF খুজে থাকেন ৷ আপনারা নিচ থেকে খুব সহজে বইটির পিডিএফ ডাউনলোড করতে পারেন ৷ সপ্তম শ্রেণীর সকল বই পিডিএফ পেতে টপবারে শ্রেণীতে ক্লিক করুণ ৷

আরও পড়ুন—সপ্তম শ্রেণীর বাংলা বই পিডিএফ || ইংলিশ বই পিডিএফ || গণিত বই পিডিএফ || বিজ্ঞান বই পিডিএফ || ইতিহাস ও সামাজিক বিজ্ঞান বই পিডিএফ || ইসলামশিক্ষা বই পিডিএফ

সপ্তম/৭ম শ্রেণীর বিজ্ঞান বই PDF | Class 7 Science Book PDF

সপ্তম/৭ম শ্রেণীর বিজ্ঞান বই PDF | Class 7 Science Book PDF

প্রিয় ভিউয়ার, আপনারা যারা সপ্তম/৭ম শ্রেণীর বিজ্ঞান বই পিডিএফ খুজছেন, আপনারা বিজ্ঞান বইটির বাংলা ও ইংলিশ উভয় ভার্সনে পিডিএফ ডাউনলোড করতে পারবেন ৷ শুধু তাই নয় সপ্তম শ্রেণীর বিজ্ঞান বইটির পিডিএফ অন্যান্য সালেরও ডাউনলোড করতে পারবেন ৷ কেননা আপনারা অনেকেই পুরাতন বই পিডিএফ খুজে থাকেন ৷

[New-2024] বিজ্ঞান বই PDF— Bangla version || English Version

বইবাংলা ভার্সন
(পিডিএফ)
ইংলিশ ভার্সন
(পিডিএফ)
বিজ্ঞান অনুসন্ধানী পাঠডাউনলোডডাউনলোড
বিজ্ঞান অনুশীলন বইডাউনলোডডাউনলোড

অন্যান্য সালের

সালবাংলা ভার্সনইংলিশ ভার্সন
সপ্তম/৭ম শ্রেণীর বিজ্ঞান বই ২০২৪ PDFবিজ্ঞান অনুসন্ধানী পাঠ,
বিজ্ঞান অনুশীলন বই
১মটি, ২য়টি
সপ্তম/৭ম শ্রেণীর বিজ্ঞান বই ২০২৩ PDFবিজ্ঞান অনুসন্ধানী পাঠ,
বিজ্ঞান অনুশীলন বই
১মটি, ২য়টি
সপ্তম/৭ম শ্রেণীর বিজ্ঞান বই ২০২২ PDFডাউনলোডডাউনলোড
সপ্তম/৭ম শ্রেণীর বিজ্ঞান বই ২০২১ PDFডাউনলোডডাউনলোড
সপ্তম/৭ম শ্রেণীর বিজ্ঞান বই ২০২০ PDFডাউনলোডডাউনলোড
সপ্তম/৭ম শ্রেণীর বিজ্ঞান বই ২০১৯ PDFডাউনলোডডাউনলোড
সপ্তম/৭ম শ্রেণীর বিজ্ঞান বই ২০১৮ PDFডাউনলোডডাউনলোড
সপ্তম/৭ম শ্রেণীর বিজ্ঞান বই ২০১৭ PDFডাউনলোডডাউনলোড

সর্বশেষ, আশা করি আপনারা যারা এতোদিন নতুন বছরের সপ্তম/৭ম শ্রেণীর বিজ্ঞান বই PDF খুজছেন তাদের জন্য উপকার হয়েছে ৷ আপনারা উপকৃত হলে অন্যদের শেয়ার করে পড়ার সুযোগ করে দিন ৷ ধন্যবাদ সবাইকে ৷

সপ্তম/৭ম শ্রেণীর বিজ্ঞান বই থেকে(সময় হলে একটু পড়ুন)

মহাশূন্য থেকে যদি পৃথিবীকে দেখো দেখবে নীল একটা গ্রহ, অন্য সব গ্রহ থেকে যার রং আলাদা। এই নীল গ্রহটাই আমাদের আবাসস্থল, পৃথিবী নামক এই ছোট্ট গ্রহতেই আমাদের মতো লক্ষ লক্ষ জীবের আবাস। অনেক বছর ধরে মানুষ মহাবিশ্বের নানা প্রান্তে অভিযান চালিয়েছে প্রাণের খোঁজে, মহাকাশযান পাঠিয়েছে দূর দূরান্তের গ্রহে প্রাণের সন্ধানে, পানির সন্ধানে। কিন্তু এখন পর্যন্ত এমন সবুজ, প্রাণপ্রাচুর্যে ভরপুর কোনো দ্বিতীয় গ্রহ খুঁজে পাওয়া যায়নি।

পৃথিবীর বায়ুমণ্ডলে অক্সিজেনের উপস্থিতি এবং পানির প্রাচুর্য এই গ্রহটিকে আমাদের মতো জীবদের বেঁচে থাকার জন্য একটা আদর্শ স্থান হিসেবে গড়ে তুলেছে। ক্ষুদ্র এককোষী ব্যাকটেরিয়া থেকে জটিল বুদ্ধিমত্তাসম্পন্ন মানুষ, সবুজ শৈবাল থেকে বিশালাকৃতির নীলতিমি-নানা আকারের, নানা বৈশিষ্ট্যের জীবের বাস এই পৃথিবীতে। ঘন জঙ্গল থেকে মেরুর বরফঘেরা তুন্দ্রা অঞ্চল, তপ্ত মরুভূমি কিংবা সাগরের গভীর তলদেশে, যেখানেই যাও দেখবে কত বিচিত্র সব জীব এই পরিবেশের সাথে খাপ খাইয়ে সেখানে বেঁচে থাকে। তোমাদের মনে কখনো প্রশ্ন এসেছে, জীবজগতের এই অভাবনীয় বৈচিত্র্যের রহস্য কী? কীভাবে এত বিচিত্র সব জীবের উদ্ভব হলো, কীভাবে এত বিচিত্র সব পরিবেশে এই জীবেরা টিকে থাকে, বংশবৃদ্ধি করে?

পৃথিবীর এই বিস্ময়কর জীববৈচিত্র্য নিয়েই এই অধ্যায়ে আমরা আলোচনা করব।

বাংলাদেশের জীববৈচিত্র্য

সিন্ধু-গঙ্গা সমতল ভূমির অংশ হিসেবে জীববৈচিত্র্যের এক অপূর্ব লীলাভূমি বাংলাদেশ। এর আগে তোমরা জেনেছ যে, বিশ্বের জীববৈচিত্র্যের হটস্পটগুলোর মধ্যে একটি-ইন্দো-বার্মা হটস্পটে বাংলাদেশের একটি অংশও রয়েছে। নাতিশীতোষ্ণ আবহাওয়া ও জলবায়ু, উর্বর মাটি, বিষুবরেখার কাছাকাছি অবস্থানের কারণে পর্যাপ্ত সূর্যালোক, অধিক বৃষ্টিপাত আর সবুজ প্রকৃতি এদেশে নানা ধরনের প্রাণী ও জীবজগতের অভয়ারণ্যের মূল কারণ।

বাংলাদেশের বিভিন্ন বাস্তুতন্ত্রকে বৈশিষ্ট্য অনুযায়ী পাঁচ ভাগে ভাগ করা যায়-উপকূলীয় এবং সামুদ্রিক বাস্তুতন্ত্র, মিঠা পানির বাস্তুতন্ত্র, স্থলজ বন বাস্তুতন্ত্র, পাহাড়ি বাস্তুতন্ত্র এবং মানবসৃষ্ট বাস্তুতন্ত্র। আলাদা করে বলতে গেলে, সুন্দরবন জীববৈচিত্র্যের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ, এটা আমরা সকলেই জানি। এছাড়াও প্রাকৃতিক বাস্তুতন্ত্রের মধ্যে হাওড় জলাভূমি, পার্বত্য চট্টগ্রামের পাহাড়ি এলাকা এদের সমৃদ্ধ জীববৈচিত্র্যের জন্য বিখ্যাত।

প্রজাতির সংখ্যার বিচারে বলতে গেলে এখন পর্যন্ত পাওয়া তথ্যমতে, বাংলাদেশে ছয় হাজারের বেশি উদ্ভিদের প্রজাতির সন্ধান পাওয়া গেছে। অপরদিকে মেরুদণ্ডী প্রাণীর ক্ষেত্রে এখন পর্যন্ত শনাক্ত করা গেছে প্রায় ১৬০০ প্রজাতি। অমেরুদণ্ডী প্রাণীর সঠিক সংখ্যা জানা না গেলেও এই দেশের প্রকৃতি এ ধরনের জীবের বেঁচে থাকার পক্ষে অত্যন্ত অনুকূল বিধায় এই সংখ্যাটাও যথেষ্ট বড় বলে অনুমান করা হয়।